বরিশালে সড়ক ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল উপকূল অতিক্রম করলেও প্রবল বৃষ্টি আর জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় প্লাবিত হয়েছে বরিশাল নগরীর অধিকাংশ এলাকা। গাছ উপড়ে পড়ে বেশকিছু সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। বিছিন্ন রয়েছে বিদ্যুৎ ব্যবস্থাও।

বরিশাল আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাত ৩টা থেকে শনিবার বিকেল ৩ টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায়  ৩০৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।  এর মধ্যে বেলা ১২টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত ৩ ঘণ্টায় ১০২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক মো. রুবেল হোসেন জানান, এর রেকর্ড শুধুই বরিশাল মেট্রোপলিটন এলাকার।  ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর সংকেট দেয়া হয়েছে।  এ কারণে লঞ্চ চলাচলও বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল চলাকালে বরিশালে বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৮৭ কিলোমিটার। পশাপাশি ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে নদ নদীর পানিও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি ও নদীর পানি বৃদ্ধি পাওযায় বরিশাল নগরীর বেশ কয়েকটি এলাকা প্লাবিত হয়েছে।  এর মধ্যে নগরীর ২৪নং ওয়ার্ডের জিয়ানগর, রূপাতলী, চাঁদমারী, রসুলপুর, স্টেডিয়ামের পেছনের অংশ, পাউবো দপ্তরের একাংশ, নবগ্রাম সড়ক, বেলতলা, পলাশপুর, কাশিপুর, কাউনিয়া, শায়েস্তাবাদ ও চরবাড়িয়া ইউনিয়নের অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

অপরদিকে নগরীর চাদমারী, পলাশপুর, নবগ্রাম, কাশিপুরসহ বেশকিছু সড়কের গাছ উপড়ে গেছে। বেশকিছু সড়কে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। পাশাপাশি বিদ্যুৎ সংযোগের উপরে গাছ উপড়ে পড়ায় পুরো নগরীতে শনিবার দুপুর ২টার পর থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, বরিশালে এই প্রথম রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে। নগরীর কয়েকটি এলাকা প্লাবিত হয়েছে। বাতাসে যেসব সড়কে গাছ উপড়ে পড়েছে সেসব গাছ সড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।  তবে বিকল্প সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বরিশাল/জে. খান স্বপন/সাইফ

Source