বাগেরহাটে ৪৪ হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত

ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বাগেরহাটে ৬২টি ইউনিয়নে প্রায় ৪৪ হাজার ৫৬৩টি ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৩৫ হাজার ৭৭৫টি আংশিক এবং আট হাজার ৭৮৮টি সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ঝড়ে বাড়িঘর ছাড়াও জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রায় ৩৫ হাজার ৫২৯ হেক্টর ফসলি জমি এবং সাত হাজার ২৩৪টি মৎস্য ঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া কয়েক লক্ষ গাছ উপড়ে ও ভেঙ্গে পড়েছে। ভেঙ্গে পড়েছে অর্ধ-শতাধিক বিদ্যুতের খুঁটি। এতে বিদ্যুৎ লাইনও ক্ষতির শিকার হযেছে।

রোববার বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ এ তথ‌্য নিশ্চিত করেন।

ঝড়ের কারণে শনিবার মধ্য রাত থেকেই বিদ্যুৎ বিহীন রয়েছে বাগেরহাট জেলা শহরের বাইরের এলাকা। জেলার অন্তত ৯০ ভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে বলে জানাগেছে।

এছাড়া ঝড়ে গাছপালা পড়ে জেলার বিভিন্ন সড়ক বন্ধ হয়ে গেছে। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় গাছ কেটে সরিয়ে নেয়ার কাজ চলমান রয়েছে।

বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিনুল ইসলাম ছানা বলেন, ‘আমার উপজেলায় ঝড়ে গাছ পড়ে পাঁচ শতাধিক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া ফসল ও মৎস্য ঘেরের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে আমরা আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা মানুষের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণ করেছি।’

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, ‘বাগেরহাট জেলায় অন্তত ৪৪ হাজার ৫৬৩টি ঘর-বাড়ি আংশিক ও সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া বেশকিছু ফসলি জমি ও মৎস্যঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ’

জেলা প্রশাসক জানান, বুলবুলের তাণ্ডবে নিহত দুজনের পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহযোগিতা করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন সব সময় দুর্যোগ কবলিত মানুষের পাশে রয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে রোববার দুপর থেকে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা লক্ষাধিক মানুষ বাড়ি ফিরে গেছেন বলে জানা গেছে।

বাগেরহাট/আলী আকবর টুটুল/সনি

Source