পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতা গণমাধ্যমকে দায়িত্বশীল করবে

খবরের সঠিক পর্যালোচনার মাধ্যমে গণমাধ্যমকে দায়িত্বশীল করার ক্ষেত্রে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারেন পাঠক। পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতা ও একটি সংবাদকে সঠিকভাবে বিশ্লেষণ করার দক্ষতা অর্জনে সংবাদ মাধ্যমেরও একটি বড় ভূমিকা রয়েছে।

খবরের সঠিক পর্যালোচনার মাধ্যমে গণমাধ্যমকে দায়িত্বশীল করার ক্ষেত্রে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারেন পাঠক।পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতা ও একটি সংবাদকে সঠিকভাবে বিশ্লেষণ করার দক্ষতা অর্জনে সংবাদ মাধ্যমেরও একটি বড় ভূমিকা রয়েছে।রাজধানীতে ইউনিসেফ বাংলাদেশের সহযোগিতায় এমআরডিআই আয়োজিত ‘পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতা এবং খবরে নীতি-নৈতিকতা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

সভায় সংবাদ-সজ্ঞানতা সৃষ্টি ও পাঠকের সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য পৃথক পাঠক ফোরাম গঠন ও সদস্যদের এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ, ফোরাম কর্তৃক গণমাধ্যম পর্যবেক্ষণ, দ্বিপাক্ষিক আলোচনা, দর্শক/পাঠকের মতামত প্রদানের সুযোগ সৃষ্টি, অনলাইন প্ল্যাটফরম গঠন, স্কুল পর্যায়ের পাঠক্রমে বিষয়টির অন্তর্ভুক্তিসহ বেশ কয়েকটি সুপারিশও করা হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান।এতে ম‍ূল প্রবন্ধ উত্থাপন করেন এমআরডিআই-এর অ্যাডভাইজর প্ল্যানিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট মো. সাহিদ হোসেন। আলোচনা সারসংক্ষেপ তুলে ধরেন ইনফোকাসের সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ হোসেন।

ড. মিজানুর রহমান বলেন, সংবাদ সজ্ঞানতা বর্তমান যুগে একটি আলোচিত বিষয়। সংবাদ বিষয়ে পাঠকের সমালোচনামূলক চিন্তার বহিঃপ্রকাশ শুধুমাত্র পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতা বৃদ্ধির সহায়কই হবেনা বরং এর ফলে গণমাধ্যম নিজের উৎকর্ষতার পথও খুঁজে পাবে।স্কুল পর্যায়ে সার্বিক নীতি-নৈতিকতা শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দিয়ে তিনি বলেন, শিশুরা সার্বিক নীতি-নৈতিকতার শিক্ষা পেলে গণমাধ্যমের নীতিনৈতিকতাও তারা বুঝবে। এভাবে আমরা একটা সংবাদ সজ্ঞান প্রজন্ম পেতে পারি।

এমআরডিআই-এর নির্বাহী পরিচালক হাসিবুর রহমান বলেন, সংবাদ-সজ্ঞানতা এবং নীতি-নৈতিকতা বিষয় দু’টি একে অন্যের সঙ্গে জড়িত। পাঠক বা শ্রোতা যখন সংবাদের অন্তর্নিহিত অর্থ অনুধাবন, মূল্যায়ন ও বিশ্লেষণে সক্ষম হবে।

ফরিদ হোসেন বলেন, সংবাদ পরিবেশনে গণমাধ্যমকে আরও বেশি দায়িত্বশীল করে তোলার জন্য পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতা একান্ত প্রয়োজন। তরুণ পাঠকরা এ কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।ইউনিসেফ বাংলাদেশের সহযোগিতায় এমআরডিআই সারা দেশব্যাপী পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতা এবং খবরে নীতি-নৈতিকতা বিষয়ে একটি গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

প্রশ্নমালা জরিপ, ফোকাস গ্রুপ আলোচনা ও বিষয় বিশেষজ্ঞের সাক্ষাৎকার গ্রহণের মধ্যে দিয়ে পাঠকের সংবাদ-সজ্ঞানতার বিভিন্ন দিক মূল্যায়ণের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।গবেষণা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে দুইটি ভাগে বিভাগীয় পর্যায়ে সংবাদ সিদ্ধান্তগ্রহীতা, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি এবং এনজিওদের জন্য মতবিনিময়ের অংশ হিসেবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।