গ্রিজ়ম্যান যেতে পারেন মেসিদের ক্লাবে, পোগবাকে নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফিরতি সেমিফাইনাল লিভারপুলের কাছে ০-৪ হারের ধাক্কা সামলাতে বার্সেলোনা নতুন করে দল সাজাতে উঠে পড়ে লাগল। নেমার দা সিলভা স্যান্টোস ক্লাব ছাড়ার পরে স্পেনের ক্লাবে যে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছিল সেটাই ভরাট করতে আতলেতিকো দে মাদ্রিদ থেকে নেওয়া হচ্ছে অঁতোয়া গ্রিজ়ম্যানকে। ফরাসি তারকা ভিডিয়ো পোস্ট করে ক্লাব ছাড়ার কথা জানালেও তিনি যে লিয়োনেল মেসির ক্লাবে যাচ্ছেনই সেটা বলেননি। কিন্তু তাঁর বার্সায় যোগ দেওয়া নিশ্চিত বলে জানা গিয়েছে। মেসি-নেমার-সুয়ারেস ত্রয়ীর মতোই বার্সায় নতুন ত্রয়ীর স্বপ্ন দেখা হচ্ছে গ্রিজ়ম্যানকে এনে। ঠিক যে ভাবে গত বার নেমারের শূন্যস্থান ভরাটের চেষ্টা হয়েছিল লিভারপুল থেকে ফিলিপে কুতিনহোকে কিনে। কিন্তু নেমারের দেশের ফুটবলার দারুণ কিছু করতে পারেননি। শোনা যাচ্ছে কুতিনহোকে বিক্রি করে দেওয়া হবে। তাঁর সম্ভাব্য গন্তব্য হয়তো চেলসি। যদিও ফুটবলার কেনা-বেচা নিয়ে চেলসি ফিফার নানা নিষেধাজ্ঞায় এখনও জর্জরিত।

নতুন মরসুমে দলবদলের নাটক নতুন মাত্রা নিয়েছে আবার পল পোগবাকে নিয়ে জল্পনা শুরু হওয়ায়। এতদিন শোনা যাচ্ছিল, জ়িনেদিন জ়িদান তাঁকে রিয়াল মাদ্রিদে চান। কিন্তু ফরাসি ম্যানেজার নাকি এই মুহূর্তে তাঁর ব্যাপারে বিশেষ আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। বরং বার্সাই তাঁকে পেতে বেশি আগ্রহী বলে খবর। যে কারণে ইভান রাকিতিচকে ছেড়ে দেওয়া হতে পারে বলে খবর। পোগবা নিজেও অতীতে বার্সায় খেলার ব্যাপারে আগ্রহের কথা জানিয়েছেন। যার বড় কারণ মেসির তিনি অসম্ভব ভক্ত। আর্জেন্টিনীয় কিংবদন্তির পাশে খেলার স্বপ্ন বহুদিনের। আর ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক অনেক দিন থেকেই খারাপ। জোসে মোরিনহোর জমানায় সেটা বিশ্রী অবস্থায় পৌঁছেছিল। ওয়ে গুন্নার সোলসার দায়িত্ব নেওয়ার পরে অবশ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। কিন্তু পোগবাও শেষ পর্যন্ত ধারাহিকতা দেখাতে পারেননি। তার উপর ম্যান ইউ পরের বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলতে পারবে না। খেলতে হবে ইউরোপা লিগে। পোগবা চান, যে কোনও ভাবে ইউরোপের সেরা প্রতিযোগিতায় খেলতে। ইটালির এক প্রচারমাধ্যমের খবর, পোগবাকে কিনতে বার্সা প্রায় ১১ হাজার কোটি ৯১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ করতে রাজি আছে। এবং বিপুল এই খরচ মেটাতেই রাকিতিচকে বিক্রি করার সম্ভাবনা প্রবল।

Source: www.anandabazar.com