চিচিপাসকে উড়িয়ে দুরন্ত রাফা ফাইনালে

ফরাসি ওপেনের আগে নিজের আত্মবিশ্বাস আর একটু বাড়িয়ে নিলেন রাফায়েল নাদাল। শনিবার রোমে সেমিফাইনালে রীতিমতো দাপট নিয়ে গ্রিসের স্টেফানোস চিচিপাসকে হারালেন ৬-৩, ৬-৪ সেটে। স্প্যানিশ মহাতারকা এখানে আট বারের চ্যাম্পিয়ন। আর চিচিপাসকে হারিয়ে এই মরসুমে প্রথম বার কোনও ক্লে-কোর্ট টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠলেন।

গত সপ্তাহেই মাদ্রিদ ওপেনের ক্লে কোর্টে সবচেয়ে কমবয়সি খেলোয়াড় হিসেবে নাদালকে হারিয়ে ছিলেন গ্রিসের চিচিপাস। কিন্তু রোমে তাঁকে বিশেষ কিছু করার সুযোগই দিলেন না রাফা। বিশেষ করে স্পেনীয় তারকা প্রায় একশো ভাগ সার্ভিসই ঠিকঠাক মারলেন। হয়তো সেই কারণেই চিচিপাস খেলার মাঝেই বেশ হতাশ হয়ে পড়লেন। আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, এই সপ্তাহে নাদাল কোনও সেটই হারেননি। অথচ এই মরসুমে তিনি ক্লে-কোর্টের তিনটি টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে হেরে যান।

নাদাল বলেছেন, ‘‘বলা যায়, প্রতিটি ম্যাচে আমার খেলায় উন্নতি হচ্ছে।’’ প্রসঙ্গত গত অক্টোবরে টরোন্টোয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরে কোনও ট্রফি জেতেননি স্পেনীয় মহাতারকা। এ দিন রোমে গ্রিসের কুড়ি বছরের তারকা চিচিপাস প্রচুর সমর্থন পেলেন। কিন্তু নাদালের বিধ্বংসী মেজাজের সামনে বিশেষ কিছুই করতে পারেননি। যা নিয়ে নাদালের মন্তব্য, ‘‘এটা ভেবে ভাল লাগছে যে শেষ পর্যন্ত সেমিফাইনালে আমি জিতলাম। তা ছাড়া ক্রমশ নিজের খেলায় উন্নতি হচ্ছে দেখেও আমি খুবই সন্তুষ্ট। আসলে চোট নিয়ে অনেক দিন থেকে ভুগেছি। একটাই ভাল খবর যে, এই মুহূর্তে সে সব নিয়ে বিশেষ কোনও সমস্যাও নেই।’’

নাদাল মনে করেন, ফরাসি ওপেনের আগে এটা তাঁর কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা টুর্নামেন্ট। সতেরোটি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক অবশ্য চিচিপাসেরও প্রশংসা করেছেন। তাঁর কথা, ‘‘স্টেফানোস খুবই প্রতিভাবান। আমি নিশ্চিত যে ছেলেটা অনেক দূর যাবে।’’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘‘প্রতি বছরই আমাকে প্রশ্ন করা হয়, এ বার নতুন কে বিশ্বের প্রথম দশে জায়গা করে নেবে। আমি কিন্তু চিচিপাসের নামটা বারবার বলি। এমন নয় যে আমি নিজে একজন বিরাট বিশেষজ্ঞ গোছের কিছু বলে ওর নামটাই করি। এই জন্য বলি যে বয়স যতই কম হোক ওর প্রথম দশে থাকার যোগ্যতা আছে। এই মরসুমে তো ছেলেটা এতটা ভাল খেলবে নিজেও ভাবিন

Source: www.anandabazar.com