পন্থ নেই, পাওয়ারহিটারদের লড়াইয়ে ভরসা সেই হার্দিক

এ বার বিশ্বকাপ শুরু হচ্ছে ৩০ মে। ভারতের প্রথম ম্যাচ ৫ জুন। এটা ইংল্যান্ডের ‘সেকেন্ড সামার’। অর্থাৎ গ্রীষ্মের পরের পর্ব। যেখানে বল সে রকম নড়াচড়া করবে না। হাওয়াতেও নয়, উইকেটে পড়েও নয়। শট খেলতে কোনও সমস্যা হবে না ব্যাটসম্যানদের। তাই মনে হয়, এই বিশ্বকাপে পাওয়ারহিটারদের দাপট দেখা যাবে। চলতি ইংল্যান্ড-পাকিস্তান সিরিজে যে ব্যাটিং তাণ্ডব দেখছি, তাতে সে রকমই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

পাওয়ারহিটারদের এই লড়াইয়ে ভারত কিন্তু একটু পিছিয়েই শুরু করবে। কেন এ কথা বলছি? কেদার যাদব সুস্থ হয়ে গিয়েছে। খুবই ভাল খবর। কিন্তু পাশাপাশি একই সঙ্গে এটাও ঠিক হয়ে গেল, ঋষভ পন্থকে এই বিশ্বকাপের বাইরেই থাকতে হচ্ছে। আমি আগেও বলেছি, এখনও বলছি, পন্থকে বিশ্বকাপে না নিয়ে যাওয়াটা চূড়ান্ত বোকামি। ও হল আদর্শ পাওয়ারহিটার। খুব জোরে বলটা মারতে পারে। ইংল্যান্ডের অনেক মাঠই বেশ ছোট। যেখানে পন্থ সহজেই মাঠ পার করে দিতে পারত। দেড়শো স্ট্রাইক রেটে শেষ দিকে ব্যাট করা ওর পক্ষে খুব কঠিন কাজ নয়।

Source: www.anandabazar.com